• ২০২২ ডিসেম্বর ০১, বৃহস্পতিবার, ১৪২৯ অগ্রহায়ণ ১৭
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:১২ অপরাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলো বাংলাদেশ

  • প্রকাশিত ০৮:১২ অপরাহ্ন বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ০১, ২০২২
বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলো বাংলাদেশ
ছবি সংগ্রহীত
এ,কে,সুমন- নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্বকাপে সেমি-ফাইনালের পথে টিকে থাকার লড়াইয়ে বাংলাদেশ তিন রানে হেরেছে উন্ডিজদের কাছে। জয়ের জন্য খেলা গড়ায় শেষ বল পর্যন্ত। শেষ বলে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৪ রান। কিন্তু কোনো রানই নিতে পারেনি ক্রিজে থাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

জয়ের জন্য শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৩ রান। রাসেলের প্রথম বলে ডাবলস, দ্বিতীয় বলে লেগ-বাই থেকে একটা সিঙ্গেল নিয়েছিলেন আফিফ। তৃতীয় বলটা ইয়র্কার থাকলেও আরেকটা ডাবলস নিতে পেরেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। চতুর্থ বলে স্কয়ার লেগে মাহমুদউল্লাহর ক্যাচ ফেলেছেন বদলি ফিল্ডার আন্দ্রে ফ্লেচার, সে বলেও এসেছিল ২ রান। পঞ্চম বলে আরেকটা মিসফিল্ড থেকে এসেছে আরেকটা ডাবলস, এবার ফিল্ডার ছিলেন হোল্ডার।

শেষ বলে প্রয়োজন ছিল ৪ রান। তবে রাসেলের ইয়র্কারে সুবিধা করতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। অনেকটা কাছে গিয়েও থামতে হলো বাংলাদেশের। ৩ রানে হেরে বিদায় প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেল মাহমুদউল্লাহর দলের, অন্যদিকে তৃতীয় ম্যাচে প্রথম জয়ে টিকে থাকল বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

এর আগে টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। বল হাতে প্রথমে ম্যাচের লাগাম বাংলাদেশের হাতে থাকলেও ক্যাচ মিসের মহড়ায় শেষ পাঁচ ওভারে অনেকটা এগিয়ে যায় ক্যারিবিয়ানরা। ২০ ওভারে শেষে ৭ উইকেটে হারিয়ে উন্ডিজরা সংগ্রহ করে ১৪২। জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ১৪৩ রান। তবে জয়ের কাছে এসেও শেষ বলের ফয়সালায় হেরে গেল বাংলাদেশ।

শেষ বেলায় ফিরলেন লিটন:

শেষের আগের ওভারের শেষ বলে সীমানায় ধরা পড়লেন লিটন দাস। ৭ বলে যখন প্রয়োজন ১৩ রান, ব্রাভোর বল ক্রিজের অনেক ভেতরে গিয়ে উড়িয়ে মারেন লিটন। লং অন সীমানায় প্রচণ্ড চাপের মধ্যে দুহাত উঁচিয়ে বল তালবন্দি করেন জেসন হোল্ডার।

লম্বা সম উইকেটে থেকে ৪৩ বলে ৪৪ রানকরে আউট হলেন লিটন। শেষ ওভারে বাংলাদেশের প্রয়োজন ১৩ রান।

স্কুপ করতে গিয়ে অসময়ে ফিরলেন মুশফিক:

আগের বল চার মেরে পরের বলেই রামপলকে স্কুপ করতে গিয়ে পুরোপুসি মিস করেন মুশফিক। ফলে বোল্ড হয়ে ফিরতে হয় মুশফিককে। লিটনের সঙ্গে জুটিটা জমছিল, কিন্তু অসময়ে ফিরে গেলেন মুশফিক। ৭ বলে ৮ রানে ফিরেছেন মুশফিক।

১৫ ওভারে শেষে চার উইকেটে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৯৯।

টিকতে পারলেন না সৌম্য:

চার মারার ঠিক পরের বলেই ক্রিস গেইলের দারুণ এক ক্যাচে ফিরতে হয়েছে সৌম্যকে। শেষ পর্যন্ত লিডিং-এজ হয়ে থার্ডম্যানে সামনে ঝুঁকে ক্যাচ নেন ক্রিস গেইল। সৌম্য করেছেন ১৩ বলে ১৭ রান। লিটনের সঙ্গে তার জুটি ছিল ৩১ রানের।

সাকিবের পর নাঈমকে হারাল বাংলাদেশ :

সাকিবের পর নাঈমকেউ হারাল বাংলাদেশ। হোল্ডারের বলে ১৯ বলে ১৭ রান করে বোল্ড হয়ে ফিরে যান নাঈম। পাওয়ারপ্লে-তে বাংলাদেশ হারাল দ্বিতীয় উইকেট। প্রথম ৬ ওভারে বাংলাদেশের রান দুই উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ ২৯।

ওপেন করে ৯ রানে ফিরলেন সাকিব:

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে প্রথমবার ওপেনিংয়ে এসে ১২ বলে ৯ রান করে মিড অফে হোল্ডারের হাতে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন সাকিব।

১৪৩ রানের টার্গেটে ওপেনিংয়ে সাকিব:

ওপেনিংয়ে ভুগছিলেন লিটন দাস। লিটনকে সরিয়ে ওপেন করছেন সাকিব। ৩৬৭ ম্যাচ, ৪০৩ ইনিংস। লম্বা ক্যারিয়ারে আজই প্রথমবার ইনিংস ওপেন করতে এলেন সাকিব আল হাসান। নাঈমের সঙ্গে এসেছেন সাকিব।

জয়ের জন্য বাংলাদেশের দরকার ১৪৩:

বিশ্বকাপে সেমি-ফাইনালের পথে টিকে থাকার লড়াইয়ে বাংলাদেশ টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। বল হাতে প্রথমে ম্যাচের লাগাম বাংলাদেশের হাতে থাকলেও ক্যাচ মিসের মহড়ায় শেষ পাঁচ ওভারে অনেকটা এগিয়ে যায় ক্যারিবিয়ানরা। ২০ ওভারে শেষে ৭ উইকেটে হারিয়ে উন্ডিজদের সংগ্রহ ১৪২। জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ১৪৩ রান।

১৩তম ওভারে রাসেল যখন কোনো বল না খেলেই আউট হন, উইন্ডিজের স্কোর ছিল ৪ উইকেটে ৬২। তবে পুরানের পর হোল্ডারের ঝড়ে লড়াই করার মতো সংগ্রহ পেয়েছে তারা। বাংলাদেশ শেষদিকে চাপ ধরে রাখতে পারেনি, পিচ্ছিল ফিল্ডিং-ও ভুগিয়েছে তাদের। শেষ ৬ ওভারে উইন্ডিজ তুলেছে ৭৩ রান।

দুই সেট ব্যাটারকে শরিফুলের জোড়া আঘাত:

শরীফুল আগের ওভারে চাপ তৈরি করেছিলেন, পরের ওভারে এসে ফেরালেন পুরানকে। অফস্টাম্পের বেশ বাইরের বলে ব্যাট চালিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন শরিফুল। ঠিক পরের বলে শরিফুল বোল্ড করেছেন এতক্ষণ ক্রিজে থাকা রোসটন চেজকে। ওভার দ্য উইকেট থেকে করা বলটা জায়গা বানিয়ে খেলতে গিয়ে মিস করেছেন চেজ।

২২ বলে ৪০ রান করেছেন পুরান, চেজ আউট হয়েছেন ৪৬ বলে ৩৯ রানে। তবে হ্যাটট্রিক বলে সিঙ্গেল নিয়েছেন জেসন হোল্ডার।

সাকিবের এক ওভারে দুই সুযোগ হাতছাড়া:

নিজের বলে একটি ক্যাচ ছেড়ে দেয়া শেখ মেহেদি হাসান এবার ক্যাচ ছাড়লেন সাকিব আল হাসানের বলে। আগেরবার জীবন পাওয়া চেইস বেঁচে গেলেন আবারো।এবারও ক্যাচটি ছিল সহজ। সাকিবের বলে স্লগ সুইপ করেন চেইস। মিড উইকেটে বল যায় সোজা মেহেদির কাছে। কিন্তু এবার তার হাত ফসকে বল যায় মাথার ওপর দিয়ে।

পরের বলে স্টাম্পিং করার সুযোগ কাজে লাগেতে পারেনি লিটন। নিকোলাস পুরান ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়েছিলেন, সাকিব করেছিলেন লেগসাইডে। তবে লিটন ধরতে পারেননি বলটা, পারলে স্টাম্পিং হতে পারতেন পুরান।

শূন্যতে ফিরলেন রাসেল, ইনিংসের লাগাম বাংলাদেশের:

তাসকিনকে স্ট্রেইট ড্রাইভ খেলেন রোসটন চেজ। তবে সে শটে পা লাগিয়েছেন তাসকিন, এরপর সেটা ভেঙেছে স্টাম্প, সে সময় ক্রিজের বেশ বাইরে ছিলেন রাসেল। কোনো বল না খেলেই রান-আউট হয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে রাসেলকে।

এদিকে ১৬ বলে ৮ রান করে উঠে গেছেন উইন্ডিজ অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড। ক্রিজে সময়টা ভালো যাচ্ছিল না মোটেও। আহত অবসর হয়ে মাঠ ছেড়েছেন তিনি।

গেইলের পর হেটমায়ারকেও ফেরালেন মেহেদি:

রোসটন চেজ দিয়েছিলেন ফিরতি ক্যাচ। তবে সহজ সুযোগটা হাতছাড়া করেছেন মেহেদী। দ্বিতীয় সাফল্য পেতে অবশ্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি মেহেদীকে। পরের বলেই তুলে মারতে গিয়ে লং-অফে সৌম্য সরকারের হাতে ধরা পড়েছেন শিমরন হেটমায়ার, ৭ বলে ৯ রান করে।

গেইলকে ফেরালেন মেহেদি:

এবার মোস্তাফিজকে সরিয়ে মেহেদীকে আনলেন, মেহেদী ফেরালেন গেইলকে। ভেতরের দিকে ঢোকা বলে ব্যাট চালিয়ে সংযোগটা ঠিকঠাক করতে পারেননি গেইল, হয়েছেন বোল্ড। গেইল করেছেন ১০ বলে ৪ রান।

প্রথমেই মোস্তাফিজের আঘাত:

এভিন লুইসকে ফেরালেন মোস্তাফিজ। গেইল অক্ষত থাকলেও মোস্তাফিজের শেষ বলে ফিরেছেন এভিন লুইস। তুলে মারতে গিয়ে খাড়া ওপরে তুলেছেন লুইস, স্কয়ার লেগে সহজ ক্যাচ নিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। মোস্তাফিজ সফল হয়েছেন নিজের প্রথম ওভারেই। লুইস ফিরেছেন ৬ রান করে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৮/২, ৪.২ ওভার।

সৌম্য-তাসকিনকে নিয়ে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

সেমিফাইনালের আশা টিকিয়ে রাখতে বাচা-মরার লড়াইয়ে আজ ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ দলে এসেছে দুই পরিবর্তন। বাদ পড়েছেন নুরুল হাসান সোহান। তার জায়গার দলে ঢুকেছেন সৌম্য সরকার। আর নাসুমের জায়গায় নেয়া হয়েছে তাসকিন আহমেদকে। গ্লাভস হাতে উইকেটের পিছনে দায়িত্ব সামলাবেন লিটন কুমার দাস।

বিশ্বকাপে আজ বাংলাদেশের ডু অর ডাই ম্যাচ। অস্তিত্বের লড়াইয়ে প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হারলেই টাইগারদের বিদায় নিশ্চিত।

অন্যদিকে, টানা দুই ব্যর্থতার পর ঘুরে দাঁড়াতে চায় উইন্ডিজ। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায়।

দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা যে স্বপ্ন দেখে এসেছে সেমিতে খেলার, আর একটা হার মানে সেটা একেবারে শেষ হয়ে যাওয়া। ১৮ দিনে ৮ টা ম্যাচ খেলায়, বিষাদ ঘিরে ধরেছে ক্রিকেটারদের। তার ওপর আবার এক দিন বিরতি দিয়ে ডু অর ডাই ম্যাচ।

মাঠে সময়টা ভালো যাচ্ছে না একেবারে। যতটুকু আশা, প্রতিপক্ষ বিবেচনায়। টাইগারদের সবচে চেনা জানা প্রতিপক্ষ উইন্ডিজ। টাইগারদের আত্মবিশ্বাস দেবে, মুখোমুখি ১২ বারের লড়াই। যেখানে ৫টা জিতেছে বাংলাদেশ, ছয়বার উইন্ডিজ। ২০০৭ সালে ওদের বিপক্ষে পাওয়া জয়টা এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত পর্বে একমাত্র জয়।

একাদশ নিয়ে স্বস্তিতে নেই টিম ম্যানেজমেন্ট। সবচে বড় চিন্তা ওপেনিং নিয়ে। সাইফউদ্দীন না থাকায় ভারসাম্য হারিয়েছে বোলিং অ্যাটাক।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন উইন্ডিজ দুই ম্যাচই বাজেভাবে হেরেছে। তাদেরও মাথা ব্যথার নাম ব্যাটিং। বাংলাদেশের বিদায় নিশ্চিত করে সেমির আশা টিকিয়ে রাখতে চায় ক্যারিবিয়রা।

শারজাতে প্রথম ম্যাচ খেলে উইকেট, কন্ডিশন সম্পর্কে ধারণা পেয়েছে টাইগাররা। ছোট বাউন্ডারির ভেন্যুতে অতীত অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে পারলে, ইতিবাচক ফল আসতেই পারে।

একাদশ :

বাংলাদেশ : ১. মোহাম্মদ নাইম, ২. লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), ৩. সাকিব আল হাসান, ৪. মুশফিকুর রহিম, ৫. মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), ৬. আফিফ হোসেন, ৭. সৌম্য সরকার, ৮. মাহেদী হাসান, ৯. শরিফুল ইসলাম, ১০. তাসকিন আহমেদ, ১১. মুস্তাফিজুর রহমান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ১. ক্রিস গেইল, ২. এভিন লুইস, ৩. রোস্টন চেজ, ৪. নিকোলাস পুরান (উইকেটরক্ষক), ৫. শিমরন হেটমায়ার, ৬. কাইরন পোলার্ড (অধিনায়ক), ৭. আন্দ্রে রাসেল, ৮. জেসন হোল্ডার, ৯. ডোয়াইন ব্রাভো, ১০. আকিল হোসেইন, ১১. রবি রামপল।

সর্বশেষ