• ২০২২ জানুয়ারী ১৭, সোমবার, ১৪২৮ মাঘ ৩
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:০১ অপরাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

কুড়িগ্রামে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে পিতা ও পুত্রের ৬ মাসের কারাদণ্ড

  • প্রকাশিত ০৪:০১ পূর্বাহ্ন সোমবার, জানুয়ারী ১৭, ২০২২
কুড়িগ্রামে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে পিতা ও পুত্রের ৬ মাসের কারাদণ্ড
গণপিটুনিতে আহত পিতা আমিনুর ইসলাম ও পুত্র আরিফুল ইসলাম
মোঃ আব্দুল কাদের, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

২৯.১১.২০২১

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার বেলগাছা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী ও তার ছেলেকে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৬ মাসের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। 

রোববার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে   কাশিয়াবাড়ী মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব কুমার রায় এই দন্ডাদেশ প্রদান করেন। কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রুহুল আমীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কারাদণ্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামীদ্বয় হলেন কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার বেলগাছা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের পলাশবাড়ী পশ্চিমপাড়া মৌজার মৃত ময়েজ উদ্দিনের পুত্র মো. আমিনুর ইসলাম (৪৪) এবং তার পুত্র মোঃ আরিফুল ইসলাম(২০)।

 মো. আমিনুর ইসলাম বেলগাছা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও এবারের নির্বাচনে ইউপি সদস্য পদের তালা মার্কার প্রার্থী ছিলেন।

পুলিশের একটি সুত্র জানায়, রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বেলগাছা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের কাশিয়াবাড়ী মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের একটি কক্ষে ঢুকে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাই করে প্রার্থী আমিনুর ইসলাম এবং তার ছেলে আরিফুল। এসময়ে কেন্দ্রে দ্বায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাকে বাঁধা প্রদান করলে তারা পুলিশের উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় সংক্ষুব্ধ জনতা পিতা-পুত্রকে গণপিটুনি দেয়। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ায় অতিরিক্ত ফোর্স এসে ঘটনাস্থলে স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরিয়ে এনে ভোট গ্রহণ অব্যাহত রাখে। এরপর ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট বাক্স ভাঙচুর ও ছিনতাই এবং রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনে বাঁধা প্রদানের অভিযোগে অভিযুক্ত দুজনকে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

গণপিটুনিতে আহত হওয়ায় আসামিদের কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। চিকিৎসা শেষে তাদের কারাগারে প্রেরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমীন।

সর্বশেষ