• ২০২২ অক্টোবর ০৩, সোমবার, ১৪২৯ আশ্বিন ১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:১০ পূর্বাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে কড়া প্রতিবাদ ঢাকার

  • প্রকাশিত ১০:১০ পূর্বাহ্ন সোমবার, অক্টোবর ০৩, ২০২২
মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে কড়া প্রতিবাদ ঢাকার
ছবি সংগ্রহীত
এ,কে,সুমন- নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ সীমান্তে গোলাগুলির ঘটনায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা। রোববার বেলা ১২টার দিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে উপস্থিত হন রাষ্ট্রদূত উ অং কিয়াউ মোর।

এ নিয়ে গত একমাসের মধ্যে মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে চারবার তলব করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের মিয়ানমার অণু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক নাজমুল হুদার দপ্তরে আজ রোববার সকালে তাকে তলব করে। বেলা ১২ টার দিকে উপস্থিত হন তিনি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছালে ১৫‌ থে‌কে ১৭ মি‌নিট অপেক্ষা ক‌রি‌য়ে রাষ্ট্রদূতসহ দুজনকে মহাপরিচালক মো. নাজমুল হুদ‌ার দপ্তরে ডেকে নেওয়া হয়। এ সময় বাংলাদেশ সীমান্তে একের পর এক হামলার ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়ে কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে তাকে চিঠি হস্তান্তর করা হয়।

পরে চিঠি নিয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ত্যাগ করেন।

সীমান্তে মর্টার শেল পড়ার ঘটনায় এর আগে ৪ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রতিবাদ জানায় ঢাকা। একই কারণে ২১ ও ২৯ আগস্টও তাকে ডেকে প্রতিবাদ জানানো হয়েছিল।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা থেকে গোলাগুলি চলে। ওই ঘটনায় রাখাইন রাজ্যের পাহাড় থেকে ছোড়া একটি মর্টারশেল এসে তুমব্রু সীমান্তের বিপরীতে শূন্যরেখায় পড়ে এক রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু হয়।

এছাড়া ওই ঘটনায় এক শিশুসহ পাঁচ রোহিঙ্গা নাগরিক আহত হয়েছেন। তারা এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এর আগে, গত ৯ সেপ্টেম্বর মিয়ানমার ভূখণ্ডে থেকে ছোড়া একটি গুলি বাংলাদেশ সীমান্তের তুমব্রু এলাকায় এসে পড়ে। ৩ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় মিয়ানমারের যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি গোলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম এলাকায় পড়ে।

তারও আগে গত ২০ ও ২৮ আগস্ট বিকালের দিকে মিয়ানমার থেকে নিক্ষেপ করা একটি মর্টারশেল অবিস্ফোরিত অবস্থায় ঘুমধুমের তুমব্রু এসে পড়ে।

এসব ঘটনায় ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূতকে দফায় দফায় ডেকে কড়া প্রতিবাদ করেছে ঢাকা। প্রতিবারই তার হাতে নোট ভার্বাল ধরিয়ে দেওয়া হয়। এর আগে সবশেষ ৪ সেপ্টেম্বর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মিয়ানমার অনুবিভাগের মহাপরিচালক মিয়া মাইনুল কবির একই ঘটনায় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রতিবাদপত্র দেন।

বেশ কিছুদিন ধরে মিয়ানমার-বাংলাদেশ সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে। দফায় দফায় বিস্ফোরণ আর গুলির শব্দে থমথমে অবস্থা বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তে। অস্থির সময় কাটাচ্ছেন আতঙ্কিত সীমান্তবাসী। নোম্যান্স ল্যান্ডে পড়া অবিস্ফোরিত মর্টার শেল নিষ্ক্রিয় করেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী ইউনিট।

কয়েকদিনের বিরতি দিয়ে শুক্রবার রাত থেকে আবারও সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারে শুরু হয়েছে ব্যাপক গোলাগুলি ও মর্টার শেল বিস্ফোরণ। মাঝে মাঝেই আকাশে দেখা যাচ্ছে সামরিক হেলিকপ্টার আর জঙ্গি বিমান। এ অবস্থায় চরম আতঙ্কে সীমান্তে বসবাসকারীরা।

সীমান্তের এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে টহল জোরদার করেছে বিজিবি। নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে চলাচল। বারবার সীমান্তে উত্তেজনা দেখা দেয়ায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও দুশ্চিন্তায়।

সর্বশেষ