• ২০২১ সেপ্টেম্বর ১৯, রবিবার, ১৪২৮ আশ্বিন ৪
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৯ পূর্বাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনীহা দেখানোয় দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে - স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন

  • প্রকাশিত ০৬:০৯ পূর্বাহ্ন রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১
স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনীহা দেখানোয় দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে - স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন
ফাইল ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, করোনার প্রথম ঢেউ সক্ষমতার সঙ্গে সামাল দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তখন স্বাস্থ্যবিধি মানতে মানুষ অনীহা দেখানোয় দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে। দ্বিতীয় ঢেউ কেন হলো, তা বুঝতে পারলে তৃতীয় ঢেউ থেকে রক্ষা মিলবে। রবিবার (২৫ এপ্রিল) ‘বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস’ উপলক্ষে অনলাইন জুম এ্যাপে স্বাস্থ্য অধিদফতর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনার প্রথম ঢেউ আমরা যথেষ্ট দক্ষতার সঙ্গে সামলে নিয়েছিলাম। ফেব্রুয়ারিতে যখন করোনায় মৃত্যু কমে আসে, তখন মানুষ ভেবেছিল করোনা দেশ থেকে চলে গেছে। আর তখনই স্বাস্থ্যবিধি মানতে মানুষ অনীহা দেখায়। কক্সবাজার, সিলেটসহ পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে ২৫/৩০ লাখ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই ভ্রমণ করেছে। অধিকহারে বিয়ে অনুষ্ঠান, পিকনিকসহ নানা রকম সামাজিক অনুষ্ঠান করা হয়েছে। তখন কোন স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি, মানুষ মাস্ক পরেনি।

মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণেই দেশে দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। দিনে প্রায় ১০০ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। সময়মতো সরকার লকডাউন ঘোষণা করায় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ হয়ত সামনেই কমে যাবে। তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণ সম্পর্কে সচেতন না হলে সামনে আবারও তৃতীয় ঢেউ চলে আসবে এবং তৃতীয় ঢেউ আরও ভয়াবহ হয়ে দেখা দিতে পারে। এ কারণে করোনার হাত থেকে বাঁচতে চাইলে দেশের প্রতিটি মানুষকে করোনা নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

দেশে মাত্র দুটি জেলা বাদে সকল জেলা থেকে ম্যালেরিয়া নির্মূল করা সম্ভব হয়েছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ম্যালেরিয়া এখন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। দেশে ২০০৮ সালের তুলনায় এখন ৯৩ শতাংশ ম্যালেরিয়া রোগী কমেছে এবং ৯৪ শতাংশ মৃত্যু কমেছে। দেশের মাত্র দুটি জেলাতে এখন ম্যালেরিয়া রয়েছে। সব মিলিয়ে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যেই দেশ থেকে ম্যালেরিয়া পুরোপুরি নির্মূল করা সম্ভব হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সিডিসি’র পরিচালক ডাঃ নাজমূল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি বিষয়ক) জুয়েনা আজিজ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলী নূর। এছাড়া স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলমসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ