• ২০২১ মে ১৬, রবিবার, ১৪২৮ জ্যৈষ্ঠ ২
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০৫ অপরাহ্ন
English

কুড়িগ্রামে অসহায় শতাধিক পরিবারের মাঝে ডিভাইন কেয়ার ফাউন্ডেশনের খাদ্যসামগ্রী ও মাস্ক বিতরণ

  • প্রকাশিত ০২:০৫ অপরাহ্ন রবিবার, মে ১৬, ২০২১
কুড়িগ্রামে অসহায় শতাধিক পরিবারের মাঝে ডিভাইন কেয়ার ফাউন্ডেশনের খাদ্যসামগ্রী ও মাস্ক বিতরণ

মোঃ আব্দুল কাদের, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ 

৩০.০৪.২০২১

করোনা ভাইরাস/কোভিড-১৯ প্যানডেমিকের কারণে চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত ভাসমান স্বল্প আয়ের শ্রমজীবি শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী ও "মাস্ক বিতরণ করেছে ডিভাইন ফাউন্ডেশ" নামের একটি সামাজিক সংগঠন।

শুক্রবার (৩০ এপ্রিল)  সকাল ১০.০০ টায় কুড়িগ্রাম নতুন রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন এসএস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল মাঠে রেলওয়ে স্টেশন ও পার্শ্ববর্তী এলাকার শতাধিক দরিদ্র্য পরিবারের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী ও মাস্ক প্রদান করা হয়।

খাদ্যসামগ্রী বিতরনের শুভ উদ্বোধন করেন কুড়িগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যক্ষ রাশেদুজ্জামান বাবু। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কোয়ালিটি শিক্ষা উদ্যোক্তা এসএস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক শিক্ষাবিদ এসকে শফিকুল ইসলাম, সংস্থার উদ্যোক্তা রতন প্রধান, বেলগাছা ইউপি সদস্য আলমগীর কবীর, যমুনা টিভির কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি নাজমুল হোসেন, চিলমারী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মমিনুল ইসলাম বাবু, টাইম বাংলা নিউজ. কম এর কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি ও সমাজ কর্মী সহঃ অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কাদের, পল্লী চিকিৎসক আবুল কালাম আজাদ ও জেলা যুবলীগ নেতা মোঃ নূর আলম।

খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে প্রতি প্যাকেটে ছিল ৫ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি লবন ও আধা কেজি সয়াবিন তেল।

সংস্থার সিইও বলেন, "ডিভাইন কেয়ার ফাউন্ডেশ" একটি অলাভজনক সংস্থা যার উদ্যোক্তাগণ কুড়িগ্রামেরই সন্তান। ক্ষুধা নিবারণের জন্য ত্রাণ বিতরণই চূড়ান্ত সমাধান নয়। তাই পিছিয়ে থাকা কুড়িগ্রামে টেকসই উন্নয়নের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে খুব শীঘ্রই নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, দারিদ্র বিমোচন ও পরিবেশ সংরক্ষণ ইস্যুতে কাজ শুরু করতে চাই।

সংস্থার প্রেসিডেন্ট গৌতম সরকার বলেন, এখনও পর্যন্ত উদ্যোক্তাদের স্বল্প দানেই চলছে এ সংস্থার কার্যক্রম। তবে মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বিজয় দিবস/২০২১ এর আগেই পরিবেশ রক্ষায় ১ লক্ষ বৃক্ষের চারা রোপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি যার বেশীর ভাগই রোপন করা হবে কুড়িগ্রাম জেলায়। 

সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কনিকা রাণী সরকার জানান, চলতি মাসে ঢাকার ডেমরা, বাংলা বাজার, টিকাটুলি, সায়দাবাদ ও দয়াগঞ্জ এলাকাতেও অনুরূপ খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে।

সর্বশেষ