• ২০২১ সেপ্টেম্বর ১৯, রবিবার, ১৪২৮ আশ্বিন ৪
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৯ পূর্বাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে‌ আর কোনো দালালির সুযোগ হবে নাঃ মেয়র

  • প্রকাশিত ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১
দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে‌ আর কোনো দালালির সুযোগ হবে নাঃ মেয়র
ফাইল ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

এ,কে,সুমন-নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে এখন থেকে আর কোনো দালালির সুযোগ হবে না বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

আজ বুধবার (২ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টায় নগর ভবনের ব্যাংক ফ্লোরে করপোরেশনের তেলেগু সম্প্রদায়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মধ্যে ‘পরিচ্ছন্নকর্মী নিবাস’ এর বরাদ্দপত্র ও চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, তেলেগু সম্প্রদায়়ের মধ্যে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিবাসের চাবি হস্তান্তরের মাধ্যমে, আজ থেকে দালাল চক্রের অবসান ঘটলো। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে এখন থেকে আর দালালি করার সুযোগ পাওয়া যাবে না। যারা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী, যারা এ বাসার হকদার তারাই এ বাসাগুলো পাবে। কোনো হকদার যেন বঞ্চিত না হয়, আমরা সেটা নিশ্চিত করবো।

মেয়র তাপস বলেন, অতীতে এমন উদাহরণ অনেক রয়েছে, বাসা বরাদ্দ পেয়েছে একজন, দখল করেছে আরেকজন। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের এখন থেকে আর কোনো দখলবাজি চলবে না।

সিটি করপোরেশনের জায়গা দখল প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মেয়র তাপস আরো বলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অনেক জায়গা উত্তর সিটি করপোরেশনের কর্মচারীরা দখল করে রেখেছেন। আমরা সেগুলো দখলমুক্ত করার কার্যক্রম গ্রহণ করবো। যারা উত্তর সিটি করপোরেশনে চাকরি করেন তাদের উত্তর সিটি করপোরেশনের জায়গায় চলে যেতে হবে। যারা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে চাকরি করেন কেবল তারাই দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের এসব সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রসঙ্গে মেয়র তাপস বলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে নতুন করে বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে। আমি বিশ্বাস করি এখন থেকে উন্মুক্ত স্থানে আর বর্জ্য পাওয়া যাবে না। পর্যায়ক্রমে আমরা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে সম্পূর্ণরূপে বর্জ্য মুক্ত করবো। আমি ঢাকাবাসীকে অনুরোধ করবো আপনারা কেউ উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য ফেলবেন না।

জলাবদ্ধতা প্রসঙ্গে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র তাপস বলেন, মঙ্গলবারের (১ জুন) বৃষ্টিতে যেসব স্থানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে, সেখানে গতবারের চেয়ে কম জলাবদ্ধতা হয়েছে। তারপরেও আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করছি, আগামীতে যেন এসব স্থান থেকে দ্রুত জলাবদ্ধতা নিরসন করা যায়। আমরা আশাবাদী অচিরেই জলাবদ্ধতার সমস্যার সমাধান হবে।

‘আমাদের লক্ষ্য সাধারণ মাত্রার বৃষ্টিপাত হলে, ঢাকা শহরে যেন পানি না জমে। অতি ভারী মাত্রার বৃষ্টিপাত হলে যেন তিন ঘণ্টায় পানি নেমে যায়, ভারী বৃষ্টিপাত হলে, পানি যেন দুই ঘণ্টায় নেমে যায় এবং মাঝারি ভারী বৃষ্টি হলে, যেন এক ঘণ্টার মধ্যেই পানি নিষ্কাশন হয়ে যায়, সেই ভাবে আমরা আমাদের কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করছি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) কাজি মনিরুল ইসলাম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বাদল সরদার, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর লাভলী চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

সভা শেষে মেয়র তাপস তেলেগু সম্প্রদায়ের ৯৫ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মধ্যে পরিচ্ছন্ন কর্মী নিবাসের বরাদ্দপত্র ও চাবি হস্তান্তর করেন।

সর্বশেষ