• ২০২১ অক্টোবর ২৭, বুধবার, ১৪২৮ কার্তিক ১২
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:১০ পূর্বাহ্ন
English
পরিচালনাপর্ষদ
আমাদের সাথে থাকুন আপনি ও ... www.timebanglanews.com

বেআইনিভাবে’ প্লট নিয়ে ‘অবৈধ টাকায়’ বাড়ি করার দুদকে মামলা এসকে সিনহার বিরুদ্ধে

  • প্রকাশিত ০৬:১০ পূর্বাহ্ন বুধবার, অক্টোবর ২৭, ২০২১
বেআইনিভাবে’ প্লট নিয়ে ‘অবৈধ টাকায়’ বাড়ি করার দুদকে মামলা এসকে সিনহার বিরুদ্ধে
ছবি সংগ্রহীত
এ,কে,সুমন- নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার (এসকে সিনহা) বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি প্লট বরাদ্দ নেয়া ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এর উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক জনকণ্ঠকে এ তথ্য জানান।


 


দুদক সূত্র জানায়, সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা তার নিজ নামে রাজউক উত্তরা আবাসিক এলাকায় একটি প্লট বরাদ্দ নিয়েছিলেন। পরবর্তীতে তিনি অসৎ উদ্দেশ্যে ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার ভাই নরেন্দ্র কুমার সিনহার নামে রাজউক পূর্বাচল প্রকল্পে প্লটের জন্য আবেদন করিয়ে তিন কাঠার একটি প্লট বরাদ্দ নিয়েছেন।


শুধু তাই নয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিন কাঠার প্লটটিকে তিনি পাঁচ কাঠায় উন্নীত করিয়েছিলেন। সেটি আবার পূর্বাচল থেকে উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরের ৬ নম্বর সড়কের ১/এ প্লটে স্থানান্তর করে রাজউক থেকে অনুমোদন করিয়ে নেন।


তিনি নিজেই এই প্লটের জন্য ৭৫ লাখ টাকা পরিশোধ করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, দুদকের অনুসন্ধানে একজন প্রকৌশলীকে দিয়ে নিরীক্ষা করিয়ে দেখা যায়, ৯ তলা ওই ভবন নির্মাণে মোট ৬ কোটি ৩১ লাখ টাকার মতো ব্যয় হয়েছে। প্লটের মূল্য হিসেবে রাজউকে জমা দেয়া ৭৫ লাখ টাকাসহ মোট ব্যয় হয়েছে ৭ কোটি ৬ লাখ টাকা।


এই নির্মাণ ব্যয়ের মধ্যে তিনি জনৈক খালেদা চৌধুরীর কাছ থেকে ফ্ল্যাট বিক্রি বাবদ অগ্রিম ৭০ লাখ টাকা নিয়েছেন। এছাড়া জনৈক শঙ্খজিত সিংহের নামে সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ৭৮ লাখ টাকা স্থায়ী ও নগদে জমা ছিল। তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে মোট ৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা নিজের ভাই ও আত্মীয়দের নামে অবৈধভাবে অর্জন করেছিলেন। এই আয়ের বৈধ কোনও উৎস নেই এবং তার জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।


দুদক সূত্র জানায়, সুরেন্দ্র কুমার সিনহা অবৈধ পন্থায় অর্জিত অর্থ বিভিন্ন ব্যক্তির হিসাবের মাধ্যমে স্থানান্তর, রূপান্তর ও হস্তান্তর করে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪ এর ২৭(১) ধারা ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন- ২০১২ এর ৪(২) (৩) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।


এর আগে জালিয়াতির মাধ্যমে ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) ঋণের চার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার বিচারকাজ শেষে রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ ছিল।


আগামী ২১ অক্টোবর এই মামলায় রায় হওয়ার কথা রয়েছে। গত মঙ্গলবার এ মামলার রায় ঘোষণা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিচারক অসুস্থ থাকায় রায়ের তারিখ পেছানো হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, সাবেক প্রধান বিচাপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা ঘুষ নেয়ার যে অভিযোগ করেছিলেন, তার কোনও প্রমাণ পাননি তদন্ত কর্মকর্তা। এ কারণে উল্টো নাজমুল হুদার বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সর্বশেষ